আপনি যাই দিবেন, তার চেয়ে দ্বীগুণ পাবেন পর্ব-১ (ফিরেএসো) - ফিরে এসো

আপনি যাই দিবেন, তার চেয়ে দ্বীগুণ পাবেন পর্ব-১ (ফিরেএসো)

আপনি যাই দিবেন, তার চেয়ে দ্বীগুণ পাবেন

পথে যদি বাধা বিপত্তি থাকে, তারপরেও ভালো কাজ করে যান। দয়ার যে বীজ আজ আপনি রোপণ করেছেন, সেটা আপনার স্পর্শ করা ঐসব অন্তরে শীঘ্রই ফলন দিবে।

যদি মনে করেন, ধন সম্পদের ভোগই আপনাকে সুখী ও তৃপ্ত করবে, তবে আরেকবার ভাবুন। কারণ আমরা যা পাই, ‘সুখ’ সেখান থেকে আসে না। বরং আমরা যা দান করি, ‘সুখ’ সেখান থেকে আসে।

প্রতিটি দিনকে ভালো মতো ব্যবহার করতে শিখুন। সময় একবার চলে গেলে, তা আর ফিরে আসে না। তাই প্রতিদিন কি করেছেন, তার ব্যাপারে সচেতন হন। প্রতিটি দিনকে ভালোকাজ ও দয়া দ্বারা পূর্ণ করুন। 

কথা বেশ শক্তিশালী। মুখ দিয়ে যা বেরিয়ে আসে, তা ফিরিয়ে নিতে অনেক সময় দেরি হয়ে যায়। সেজন্য  অন্যের হৃদয়কে আঘাত করে, এমন বিদ্বেষী কথা বলার ব্যাপারে সাবধান হয়ে যান। হৃদয় ভাঙ্গার ক্ষত সারানো প্রায় অসম্ভব।

যারা অন্যকে গড়ে তোলে এবং মানুষকে অনুপ্রাণিত করে, তারা সত্যই [আল্লাহর] অনুগ্রহ লাভ করে। কারণ ঐসব লোকেরা জানে, সমালোচিত হওয়া এবং সব সময় নিন্দিত হওয়ার জ্বালা কতটা গভীর।

আপনি যাই পাঠান না কেন, তাই আপনার কাছে ফিরে আসবে। এটা জীবনের এক সাধারণ নিয়ম, কেননা জীবন এক প্রকারের প্রতিধ্বণি। যা দান করেবেন । যেমন বীজ রোপন করবেন, তেমন  ফসল পাবেন। 

সামান্য দান কে কখনো খাটো করে দেখবেন না

আপনার কাছে হয়তো এটা কিছুই না, কিন্তু অন্যের  কাছে  এটা এক দিনের মুজুরী। সামান্য পরিমাণ দয়াকেও কখনো খাটো করে দেখবেন না । সামনে এগিয়ে যান এবং কাজটি করে ফেলুন। 

কোনো বিষয়ে সকলের মতামত কখনো এক হবে না। এটা সাধারণ ব্যাপার। প্রত্যেকের সমস্ত মতের সাথে একমত হতে হবে, এমন কোনো কথা নেই, কিন্তু ভিন্নমতকে সম্মান করতে শিখুন।

সুন্দর অন্তর সবার মাঝে ভালো জিনিসি দেখতে পায়, অন্যদিকে সুন্দর জিহ্বা নিজের মাঝে লুকিয়ে থাকা সুন্দর সত্তাকে সকলের সামনে মেলে ধরে।

যিনি বিপদে আছেন, হয়তো তাকে দেয়ার মতো কিছুই আপনার কাছে নেই। কিন্তু চাইলেই তো আপনি শান্তি ও আশার বাহক হতে পারেন এবং হতে পারেন বিপদগ্রস্থ লোকের দুঃখের ] কথা শোনার সাথি।

সর্বদা সাহাযোর হাত প্রসারিত রাখুন, এমনকি অচেনা লোকের প্রতিও দয়া দেখান। সামান্য ভালো কাজও অনেকের মাঝে ঈমান ও আত্নবিশ্বাস ফিরিতে আনতে পারে।

অন্যের সাথে আমরা কীভাবে লেনদেন করি, সেটাই আমাদের সবচেয়ে বড় পরীক্ষা। ভণ্ডামি, গর্ব ও নষ্টামি থেকে নিজেদের অন্তরকে পবিত্র করুন। আল্লাহ আমাদেরকে হেদায়ত দিন।

 যারা পথ হারিয়ে ফেলেছে, তাদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। যারা আত্নগরিমা, লোভ, হিংসা ও রাগ দেখায়, তাদের ব্যাপারে ধৈয্য ধারণ করুন। তাদের জন্য দোয়া করুন।

দানের মাধ্যমেই আল্লাহ আমাদের অর্জনকে মধুর করে তোলেন। আল্লাহ আমাদের জীবনকেও আরও সমৃদ্ধ করুন, যাতে করে অন্যের জীবন আমরা [ইতিবাচক ] পরিবর্তন আনতে পারি।

অন্যের সমালোচনা করতে অনেকেরই একটিবারও চিন্তা করে না। তারা অসহিষ্ণু লোক এবং লোকদেরকে তারা অপমান করতে চায়। সদয় হন। মানুষকে নিচ থেকে উপরে তুলুন। সুস্থ হতে তাদেরকে সহায় করুন।

আপনি যদি সর্বশক্তিমান (আল্লাহর) নিকটবর্তী হতে মানুষকে সহায়তা করতে চান, তবে উপযুক্ত সৌজন্য ও ভদ্রতা বজায় রাখুন। দম্ভের সাথে এই কাজ বিনয়ী হন।

আপনার সদয় আচরণকে মূল্যায়ণ করা না হলে, দুঃখিত হবেন না। ভালো কাজ চালিয়ে যান। সর্বত্র ভালো কাজের নিস্তার ঘটান। এসব ভালো কাজ আপনার কাছেই ফিরে আসবে।

গায়ের রং কিংবা চেহারার কারণে অন্যকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করা সবচেয়ে বাজে কাজের অন্তর্ভূক্ত। বর্ণবাদ কুৎসিত ও জঘন্য। বর্ণবাদ ভ্রান্ত।

আপনি যা দান করেন, তা যদি সামান্যও  হয়, তবে সেটা নিয়ে মাথা ঘামাবেন না। পরিমান বড় কথা নয়, বরং সাহায্য করার মানসিকতা মুখ্য বিষয়। সর্বশক্তিমান (আল্লাহ) কখনো আপনার ভালো কাজ ভুলে যান না।

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.